কোল্ড ড্রিঙ্কস এর ভালো মন্দ

সময়ের বিবর্তনে এবং আমাদের খাদ্যাভাস এর পরিবর্তনে  কোল্ড ড্রিঙ্কস এখন আমাদের  নিত্যদিনের সাথী। বিশেষ করে আমাদের বাচ্চারা এবং ইয়ং জেনারেশন এক প্রকার আসক্ত এই কোল্ড ড্রিঙ্কস বা কোমল পানিওতে। গরমে তেষ্টা মেটাতে যেন এর কোনো জুড়ি নেই. কি থাকে এই কোল্ড ড্রিঙ্কসে ? এর ৯৫% পানি ,৪% চিনি বা অন্য কোনো মিষ্টি জাতীয় পদার্থ। এছাড়া সাইট্রিক অ্যাসিড ফসফোরিক এসিড হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড সোডিয়াম বা পটাসিয়াম ক্লোরাইড এবং খাবার রং ও সুগন্ধী। অনেক ড্রিঙ্কসে টাটকা ফলের রস থাকে বলা হলেও তা আসলে সত্যি নয়। অনেক কোল্ড ড্রিঙ্কসে শরীরে ক্লান্তি দূর করার জন্য ও চনমনে ভাব আনার জন্য ক্যাফিন মেশানো হয়।  অতিরিক্ত ক্যাফিন দেহে প্রবেশ করলে ক্যাফিনিজম রোগ হয়.যার ফলে রক্তে সুগার ও কোলেস্ট্ররেল বাড়তে পারে, রক্ত চাপ  বাড়তে পারে, খিদে ও ঘুম কমে যেতে পারে এবং অবসাদ লাগতে পারে। কোমল পানীয়কে স্বাদ গন্ধে আরো আকর্ষণীয় করার জন্য অনেক কোম্পানি ফ্লোরিন ও ব্রোমিন যুক্ত রাসায়নিক পদার্থ মেশাচ্ছে যা শরীরের জন্য ক্ষতিকর। অল্প কোমল পানিও খেলে কোনো ক্ষতি নেই কিন্তু যারা প্রতিনিয়ত খেয়ে থাকে তাদের ক্ষতি হবার সম্ভাবনা বেশি। অতিরিক্ত সোডিয়াম ,পটাসিয়াম ও বিভিন্ন অ্যাসিড পাকস্থলী ,কিডনি লিভারসহ দেহে বহু গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গের ক্ষতি করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *